মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

উপজেলা প্রশাসনের পটভূমি

কটিয়াদী উপজেলার অবস্থান ও আয়তনঃ – রাজধানী ঢাকা হতে  প্রায় ৯৪ কিঃ মিঃ উত্তর পূর্বে কিশোরগঞ্জ জেলা শহর থেকে ২৬ কিঃ মিঃ দক্ষিনে প্রাচীন মধ্য ও আধুনিক যুগকে ধারন করে উজ্বল  উপস্থিতি আজ  ঘোষনা  করেছে কটিয়াদী  উপজেলা ।     

 

কটিয়াদী উপজেলার উত্তরে কিশোরগঞ্জ জেলা সদর , পূর্বে কিশোরগঞ্জ জেলার বাজিতপুর ও নিকলী , দক্ষিণ ও দক্ষিন পশ্চিমে  নরসিংদী জেলার মনোহরদী , দক্ষিণ পূর্বে  কিশোরগঞ্জ জেলার কুলিয়ারচর এবং পশ্চিমে  কিশোরগঞ্জ জেলার পাকুন্দিয়া  উপজেলা দ্বারা বেষ্টিত । কটিয়াদী উপজেলায় বর্তমানে  ১৫৫ টি গ্রাম এবং ৯৭ টি মৌজা রয়েছে । ০১ টি পৌরসভা ও নয়টি  ইউনিয়ন সমন্বয়ে গঠিত  এ উপজেলার আয়তন ২২১.৮৮ বর্গ কিঃ মিঃ ।

কটিয়াদী নামকরনঃ- কটিয়াদী নামকরনের ব্যাপারে  বিভিন্ন জনশ্রুতি রয়েছে । কেউ বলেন প্রাচীন আমলে  আড়িয়াল খাঁ নদীর তীরে  আসন গড়েছিলেন ‘‘ কটি ফকীর ‘’  নামে এক কামেল দরবেশ । কথিত আছে এই কটি ফকীর  আধ্যাতিক সাধনের মাধ্যমে  মানুষের উপকার করতেন । এই কটি ফকিরের নামানুসারেই  কটিয়াদী নামের উৎপত্তি ।  আবার কেউ বলেন  কটিয়াদী ও তার পাশ্ববর্তী  অঞ্চলে ইংরেজ  সাহেবদের অনেক গুলো  নীল কুটির ছিল ।  নীল কর সাহেবদের  দৈনন্দিন  প্রয়োজনীয় কেনা কাটার জন্য  আড়িয়াল খাঁ নদের উত্তর পাড়ে  গড়ে উঠে ছোট্র একটি বাজার। এই নীল কুঠির কুঠে থেকে কঠিয়াদী পরবর্তীতে কটিয়াদী  নামে পরিচিত ।

আবার কেউ কেউ  কটিয়াদী নামকরনের ব্যাপারে  অন্য মত পোষন করেছেন ।  শতাব্দীর অন্তরালে  সন্থে কবি আবদুল হান্নান  উল্লেখ করেছেন  আজ থেকে  আটশত বছর পূর্বে  এগারসিন্ধুরের প্রাচীন ইতিহাস  সামন্ত কোচ রাজাদের  মধ্যে বেবোধী নামে এক রাজার  নাম রয়েছে ।  তিনি অত্যান্ত সম্মানীত রাজা ছিলেন ।  রেবোধী শব্দটির  শেষ অংশটা ধী দ্বারা পূর্ণ ।  আর এই ধী বা দি শব্দটির বহুল প্রচলন  দেখা যায়  বিভিন  স্থান ও নামের পার্শ্বে ।  সেকালে ও সম্মান সূচক অর্থে এই দীর ব্যবহার ছিল ।  কিংবা সুন্দরের প্রতিক ছিল ।  এমন ও হতে পারে কটি ফকীর  বেরোধী  রাজার অত্মীয় বা উত্তর সূরী  হিসাবে  তার  নামের সাথে  প্রথম শব্দ কটি  এবং রাজার  ধী  উপাধী  সংযুক্ত করে  কটিধী  থেকে  পরবর্তীতে  কটিয়াদী নামকরন হয়েছে ।